আপনি কি বেকার…? আপনি কি কোন কাজ পাচ্ছেনা…?ঘরে বসে আয়ের ৫ সহজ উপায়

http://sunnobd.com

আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন ।

ঘরে বসে আয়ের ৫ সহজ উপায়

বর্তমানে এই অনলাইনের যুগেও বেকারত্বের হারও দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনেকে আবার ইনকামের নতুন পথ খুঁজতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। অনেকেই আছে চাকরি বা ইনকামের পথ থাকা সত্ত্বেও বাড়তি ইনকামের বাইরে জন্য বিভিন্ন কাজ খোঁজেন।আমাদের সমাজে অনেক মানুষ আছে পড়াশোনা করে বাড়িতে বসে আছে কোন কাজ করছেনা৷

যে ব্যক্তিটা বেকার বসে আছে সে হয়তো ভালো করে লেখাপড়া করেনি কোন মতে সাটিফিকেট গুলো অর্জন করেছে।এখন চাকরির ইন্টারভিউ দিতে গিয়ে বারবার অকৃতকার্য হচ্ছে আবার অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী আছে যায়া টাকার কারণে পড়াশোনা করতে পারছেনা বা চাকরিতে যোগ দিতে পারছেনা। কারণ এই যুগে মেধাবী থাকলেও টাকা ছাড়া চাকরি হয়না।

আমাদের দেখা এমন অনেক মানুষ আছে যায় পড়াশোনা করার পরেও রিকশা চালায় পরিবারের দিকে তাকিয়ে। কি করবে বেঁচে থাকতে হলে তো টাকা লাগবে আর টাকা তো আর কেউ এমনি এমনি দিবেনা এর জন্য কাজ করতে হবে। এখন আপনার যদি এমন পরিস্থিতি হয়ে থাকে তাহলে আপনি অনলাইনে ইনকামের কাজ করতে পারেন। আসলে অনেক আছে এই রকম অনেক আর্টিকেল ভিডিও দেখেছে কিন্তু কাজ হচ্ছেনা। আসলে কাজ হবে কমনে কাজতো আগে শুরু করতে হবে এবং লেগে থাকতে হবে।

আজকে এ রকমি কিছু ইনকাম উপায় নিয়ে কথা বলবো চলুন শুরু করা যাক।

১। অনলাইন টিউটর

আপনি যদি অঙ্ক বা ইংরেজি বিষয়ে ভালো দক্ষ হোন তাহলে আপনি অনলাইনে থেকে ইনকাম করতে পারেন। আপনি যদি এইসব বিষয় খুব সহজে অন্যকে বুঝাতে পারেন তাহলে নিচের দেওয়া ওয়েবসাইট থেকে ঘুরে আসতে পারেন। এখানে আপনি শিক্ষার্থীদের পড়িয়ে টাকা ইনকাম করতে পারেন। Tutor.com
Tutorme.com
Tutors.com
Vipkid.com
Skooli.com

উল্লেখিত এসব ওয়েবসাইটে কোন কোনটিতে ব্যাচেলর ডিগ্রি বা অন্যান্য টিচিং লাইসেন্স চাওয়া হতে পারে। এগুলো আপনাকে দিয়ে তার আপনার কাজ শুরু করতে হবে।

২। ওয়েব ডিজাইনার

এই কথাটির সাথে অনেকেই পরিচিত। আসলে এটি করার মাধ্যমে আপনি অন্যের ওয়েবসাইট ডিজাইন করে টাকা ইনকাম করতে পারেন। আর এটি করার জন্য আপনাকে কিছু কম্পিউটার ভাষা শিখতে হবে। এই ভাষা গুলো অনেকে বইতে পড়েছেন বা কোন ওয়েবসাইট দেখেছেন বা পড়েছেন। ওয়েবসাইট ডিজাইন করার জন্য আপনাকে CSS,HTML, JAVA Script এসব পোগ্রামিং ভাষা জানা থাকতে হবে। এসব ভাষা জানা না থাকলে এখনি শিখার চেষ্টা শুরু করুন ভবিষ্যতে কাজে আসবে।

৩। হাতে তৈরি জিনিসপত্র বিক্রি

আপনি যদি সৃজনশীল প্রিয় মানুষ হোন বা নিজের বাড়িতেই নিজের হাতেই জিনিস করতে পারেন। তাহলে আপনি এসব জিনিস বিক্রির প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে সেখানে নিজের হাতের জিনিসপত্র বিক্রি করে ইনকাম করতে পারেন। এখন অনলাইনে এমন অহরহ জিনিসপত্র বিক্রি হচ্ছে। আপনিও চাইলে এই কাজ শুরু করতে পারন।

৪। ভার্চুয়াল এসিট্যান্ট

বর্তমানে এই গতিময় জীবনে মানুষ নিজের মূলবান সময় কাজে লাগানোর জন্য ভার্চুয়াল এসিট্যান্ট নিয়োগ দিয়ে থাকে। বড় প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের মিটিং এর আয়োজন থেকে শুরু করে খুঁটিনাটি কাজের জন্য নতুন লোক নিয়োগ দেওয়া হয়।এই বিষয়টিকে অপর্চুনিটি কস্ট’ বলা হয়।কোম্পানি গুলো লোক নিয়োগের মাধ্যমে কিছু অর্থ দিয়ে তাদের মূলবান সময় নষ্টের হাত থেকে বাঁচায়।ফ্রিল্যান্সার ডট কম, ফ্যান্সিহ্যান্ডস ডট কম আপওয়ার্ক ডট কমের মত ওয়েবসাইটগুলোতে নিজের স্কিল পাবলিশ করুন এবং অপেক্ষা করুন সুযোগের।

৫। কাস্টমার সার্ভিস

এখন বড় বড় অনলাইন কোম্পানির কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস বহাল রাখার জন্য অনেক কর্মীর দরকার হয়। আপনার যদি ভালো কম্পিউটার থাকে বাসায় কোলাহল না থাকে এবং ইন্টারনেট স্পিড ভালো থাকে তাহলে আপনি এই কাজটি করতে পারবেন। এই কাজটি তেমন কোন ঝামেলা নেই শুধু গ্রাহকদের সাথে কথা বলা এবং তাদের সমস্যা সমাধান করা।

তো এই ছিল আজকের আর্টিকেল আসলে কাজ শুরু করে চেষ্টা না করলে বুঝা যায়না কাজটি সহজ না কঠিন।আর কাজের মধ্যে সমস্যা থাকবে তাই বলে কাজ ছেড়ে পালতে হবে এমনটি নয়। আমরা অনেকেই আছি কাজ শুরু করবো করবো বলে আর শুরু করা হয়না সেজন্য সেই কাজ করা করা হয়না।

আশা করি সবাই সবকিছু বুঝতে পেরেছেন।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *